Home / অন্যান্য / গো’প’ন সম’স্যা’র কার্যকরী সমাধান এই তেলটি

গো’প’ন সম’স্যা’র কার্যকরী সমাধান এই তেলটি

 

কালোজিয়া শুধু ছোট ছোট কালো দানা নয়’ এর মধ্যে রয়েছে বিস্ময়কর শ’ক্তি। প্রাচীনকাল থেকে কালোজিরা মানবদে’হের বিভিন্ন রোগের প্রতিষে’;ধক ও প্রতিরোধক। শুধু এখানেই শেষ নয়’ কালোজিরা চুলপড়া’ মাথাব্য’থা’ অনিদ্রা’ মাথা ঝিমঝিম ক’রা’ মুখশ্রী ও সৌন্দর্য র’ক্ষা’ অবসন্নতা-দু’র্বলতা’

নিষ্ক্রিয়তা ও অলসতা’ আহারে অরুচি এবং মস্তিষ্ক শ’ক্তি তথা স্মরণশ’ক্তি বাড়ায়। এ ছাড়া অনেকে গো’পন শ’ক্তি বাড়াতে চিকি’ৎসকের আশ্রয় নেন ও ভায়া-গ্রা সেবন ক’রেন! তাদের বলছি-এর জন্য ভায়া-গ্রা নয়’ এক চামুচ কালোজিরাই যথেষ্ট। কারণ কালোজিরা’য় এ ক্ষ’মতা অপরিসীম।

বিশেষজ্ঞদের মতে’ কালোজিরা’য় রয়েছে-ফসফেট’ লৌহ’ ফসফরাস’ কার্বো-হাইড্রেট ছাড়াও জী’বাণুনাশক বিভিন্ন উপাদান। কালোজিরা’য় ক্যা’ন্সার প্র’তিরো’ধক কেরোটিন ও শ’ক্তিশালী হরমোন’ প্রস্রাবসংক্রা’ন্ত বিভিন্ন রো’গ প্র’তিরো’ধকারী উপাদান’ পাচক এনজাইম ও অম্লনাশক উপাদান এবং অম্লরো’গের প্রতিষেধক।

আসুন জে’নে নিই কালোজিরা’য় আর কি কি উপকারিতা রয়েছে- মাথাব্য’থা: মাথাব্য’থায় কপালে উভয় চিবুকে ও কানের পার্শ্ববর্তী স্থানে দৈনিক ৩-৪ বার কালোজিরার তেল মালিশ ক’রুণ। তিন দিন খালি পে’টে চা চামচে এক চামচ ক’রে তেল পান করুন উপকার পাবেন।

যৌ*ন দু’র্বলতা: কালোজিরা চুর্ণ ও অলিভ অয়েল’ ৫০ গ্রাম হেলেঞ্চার রস ও ২০০ গ্রাম খাঁটি মধু একস’ঙ্গে মিশিয়ে সকালে খাবারের পর এক চামুচ ক’রে খান। এতে গো’পন শ’ক্তি বৃ’দ্ধি পাবে। চুলপড়া: লেবু দিয়ে সব মাথার খুলি ভালোভাবে ঘষুণ। ১৫ মিনিট পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন ও ভালোভাবে মাথা মুছে ফেলুন।

তার পর মাথার চুল ভালোভাবে শুকানোর পর স’ম্পূর্ণ মাথার খুলিতে কালোজিরার তেল মালিশ করুন। এতে এক সপ্তাহেই চুলপড়া কমে যাবে। কফ ও হাঁপানি: বুকে ও পিঠে কালোজিরার তেল মালিশ করুন। এ ক্ষেত্রে হাঁপানিতে উপকারী অন্যান্য মালিশের স’ঙ্গে এটি মিশিয়েও নেয়া যেতে পারে।

স্মৃ’তিশ’ক্তি বাড়ে ও অ্যাজমায় উন্নতি ঘ’টে: এক চামচ মধুতে একটু কালোজিরা দিয়ে খেয়ে ফেলুন। এতে স্মৃ’তিশ’ক্তি বৃ’দ্ধি পায়। হালকা উ’ষ্ণ পানিতে কালোজিরা মিলিয়ে ৪৫ দিনের মতো খেলে অ্যাজমা’র স’মস্যার উন্নতি ঘ’টে। ডায়াবেটিস: কালোজিরার চূর্ণ ও ডালিমের খোসা চূর্ণ মি’শ্রণ এবং কালোজিরার তেল ডায়াবেটিসে উপকারী।

মেদ ও হৃদরো’গ: চায়ের স’ঙ্গে নিয়মিত কালোজিরা মিশিয়ে অথবা এর তেল মিশিয়ে পান করলে হৃদরো’গে যেমন উপকার হয়’ তেমনি মেদ কমে যায়। অ্যাসিডিটি ও গ্যাস্টিক: এক কাপ দুধ ও এক টেবিল চামুচ কালোজিরার তেল দৈনিক তিনবার ৫-৭ দিন সেবন ক’রতে হবে। এতে গ্যাস্টিক কমে যাবে।

চোখে স’মস্যা: রাতে ঘুমানোর আগে চোখের উভয়পাশে ও ভুরুতে কালোজিরার তেল মালিশ ক’রুণ। এক কাপ গাজরের রসের স’ঙ্গে এক মাস কালোজিরা তেল সেবন করুন। উচ্চ র’ক্তচা’প: যখনই গ’র’ম পানীয় বা চা পান করবেন’ তখনই কালোজিরা খাবেন।

গ’র’ম খাদ্য বা ভাত খাওয়ার সময় কালোজিরার ভর্তা খান র’ক্তচা’প স্বা’ভাবিক থাকবে। এ ছাড়া কালোজিরা’ নিম ও রসুনের তেল একস’ঙ্গে মিশিয়ে মাথায় ব্যবহার ক’রুণ। এটি ২-৩ দিন পরপর ক’রা যায়।জ্বর: সকাল-সন্ধ্যায় লেবুর রসের স’ঙ্গে এক টেবিল চামুচ কালোজিরা তেল পান ক’রুণ।

আর কালোজিরার নস্যি গ্রহণ করুন। স্ত্রীরো’গ: প্র’সব ও ভ্রুণ সংরক্ষণে কালোজিরা মৌরী ও মধু দৈনিক ৪ বার খান। সৌন্দর্য বৃ’দ্ধি: অলিভ অয়েল ও কালোজিরা তেল মিশিয়ে মুখে মেখে এক ঘণ্টা পর সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলন।

বাত: পিঠে ও অন্যান্য বাতের বে’দনায় কালোজিরার তেল মালিশ করুন। এ ছাড়া মধুসহ প্রতিদিন সকালে কালোজিরা সেবনে স্বা’স্থ্য ভালো থাকে। দাঁত শক্ত ক’রে: দই ও কালোজিরার মি’শ্রণ প্রতিদিন দুবার দাঁতে ব্যবহার করুন।

এতে দাঁতে শিরশিরে অনুভূতি ও র’ক্তপাত ব’ন্ধ হবে। ওজন কমায়: যারা ওজন কমাতে চান’ তাদের খাদ্য তালিকায় উ’ষ্ণ পানি’ মধু ও লেবুর রসের মি’শ্রণ গু’রুত্ব পূর্ণ হয়ে ওঠে। এখন এই মি’শ্রণে কিছু কালোজিরা পাউডার ছিটিয়ে দিন। পান ক’রে দারুণ উপকার পাবেন।

About admin

Check Also

মি’ল’নের স’ময় মে’য়ে’দের ক’য়বার অ’র্গা’জ’ম হ’ওয়া দরকার? প্র’ত্যে’ক ছেলেদের জানা উচিৎ…

হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপাত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসু’বিধা হচ্ছে,প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, …

One comment

  1. Hi, i think that i noticed you visited my blog so i got here to go back the choose?.I
    am trying to find issues to improve my site!I guess its adequate to make use of a few
    of your ideas!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *